কচিকলা যে এভাবে ফাঁসবেন কেউ ভাবতেই পারেননি। মামলার মস্ত গামলা দেখে কচিকলা বিঝেই গেছিলেন গার্ড স্বর্গ বাস তার লম্বা হতে চলেছে। ওদিকে কচিকলার কচি মন , তার ওপরে দক্ষিণী সুপারস্টার সজনীকান্তের দেশে থাকেন , পুরো সিনেমার স্টাইলে জেলের ভোল পাল্টিয়ে দিলেন। কোটি টাকার রান্নাঘর , জেল আর কে বলবে পুরো পাঁচ তারা হোটেল।  সমস্যা হলো সব জানাজানি হয়ে।  এখন আর কি! কচিকলা ফের কচি সেজেছেন , আর জেল কর্তা , কর্ত্রীরা লুঙ্গি ডান্স দিচ্ছেন। 
অন্যদিকে ঘোর সমস্যায় আলুপ্রসাদ যাদব। টিকটিকি খালি টিকটিক করছে ঘরে। তার ওপরে পুত্র হতশ্রী যাদব।  সেও গারদ যাত্রার প্রমাদ গুনছে। মুখ্যমন্ত্রী ব্রতীশ যাদবও এই নিয়ে রেগে লাল।  
এদিকে মরুৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় চিন্তায় আহার নিদ্রা ত্যাগ করেছেন। কলকাতার লাগুক খেকো নেতা মাননীয় ঘোষ মরুৎ বাবুর বিখ্যাত ছোট গল্প ‘ দীনেশ ‘ এর কিছু কিছু শব্দের বদলে ‘বিপ’ শব্দ বসাতে বলেছেন।  দীনেশ মূলত একটি ‘ বিপ’ -এর    বিষয় নিয়ে খুব করুন গল্প। সাম্প্রতিক একটি সিনেমায় কবি ঠাকুরের পাগলা হাওয়ার বাদল দিনে গানটি ব্যবহৃত হয়েছিলো।  ফিল্ম কাঁচি বোর্ড গানের মধ্যে একটি জায়গায় ‘বিপ ‘ বসাতে বলেছেন।  সংশোধিত অবস্থায় গানটি হয়েছে – বৃষ্টি নেশা ভরা সন্ধ্যা বেলা , কোন বল’বিপ ‘ এর আমি চ্যালা ‘ ,
                                                                                                        – চলবে 
Facebook Comments