তিন বছরের সম্পর্কটার আজ একটি নতুন নাম হয়েছে। চেহারা নিয়েছে নতুনত্বের।
পাল্টে গেছে চলন বলনের ধরণও।
কিছু ভাল, আবার কিছু মন্দ।
এখনো হয়তো গোলাপের পাঁপড়ি গুলো টাটকা তরতাজা আছে, আবার সেই গোলাপের মধ্যেই রয়ে গেছে কিছু কাঁটাও ।

আজও সময়ের সাথে মিশে আছে বহু না পাওয়ার স্রোত, বহু অনুভূতি, তবে আজও কিছু সময়ের স্মৃতি একাকিত্বের সঙ্গী ।
থেমে আছে কিছু মুহুরত, চাতক পাখির মতো,
বৃষ্টি এলেই বুঝি আবার বললে তারা এত কীসের অপেক্ষা করো।
দুটি মন, একটি প্রাণ আজ মিশছে অন্ধকারে, মিলনের নেশায় আবেগ অনুভূতি একাকিত্বের  বশে।
মিলনের শেষে আমি চেয়ে আছি তোমার মুখের পানে,
এই বুঝি তুমি হুংকার দাও “নষ্ট নারী” বলে।
নষ্ট আমি, ভ্রষ্ট আমি, সবই তোমার হাতে, তবু তুমি দাও সেই উপাধি অন্য কোনো ছলে।
সমাজ বলে “নোংরা মেয়ে” আবার যাবে সেখানে,
মহান হয়ে তুমি দিলে ক্ষমা করে মোরে।
ক্ষমার আড়ালে রইলো অনেক লাঞ্ছনা, অপমান,
সত্যি বলছি, মাথা নত করে থাকবোনা চিরকাল।
সব ভালো আজ ধূয়ে মুছে মোর গেছে চিরতরে,
মহান রূপের আলোর ছটা পড়ুক সমাজ তটে।
সমুদ্র হয়ে বয়ে যাও তুমি আমার বুকের ওপর,
আমি থাকি চোরাবালি হয়ে, নষ্ট রক্ষা কবচ।
তবু বলে যাবো, ভালবেসে যাবো, থেকে যাবো চিরন্তন,
সময় পেলে নষ্ট নীড়ে বেঁধো খেলাঘর।।

ইতি
এক নষ্ট নীড়।

মোনালিসা আচার্য্য

মোনালিসা আচার্য্য

মোনালিসা আচার্য্য সাংবাদিকতা ও গণজ্ঞাপন বিভাগের স্নাতক স্তরের ছাত্রী। পড়াশুনোর পাশাপাশি লেখালিখিসহ না না সৃজনশীল কাজে উৎসাহী।

Facebook Comments