তোমাকে ভ্রমন করার পর বুঝেছি আকাশপথের শেষ সীমানায় যতটা রহস্য আছে লুকিয়ে,

তোমার জলরাশিতে ঠোঁট ভিজিয়ে বুঝেছি সমুদ্রতলের গভীরতায় যতটা রহস্য আজও অনাবিস্কৃত,

তার থেকে কিছুটা বেশি রহস্যময় তোমার নগ্নবৃত্তান্ত ও যৌনতা…

ভ্রমন ঘড়িতে জাল গড়ছে দুটি মকড়সা আর

অদ্ভুত একটি রাজহাঁস ওই বাঁকের সামনে শীতল হয়ে পড়ছে।

এবং একটি বিড়াল তার জ্বলজ্বল চোখদুটি ঢেকে রাখছে পদ্মপাতায়।

এমন দৃশ্যেও আমি থেকেছি ভ্রমনরত,

আমার শুরু ও শেষ গন্তব্যের নাম পৃথিবীর জন্মরহস্য ও মাদার মেরী

ভ্রমন শেষ হয়নি তখনও। শেষ বজ্রাঘাতে ফেলে এসেছি ব-দ্বীপ

তোমাকে ভ্রমন করার পর জেনেছি-

শরীর এমন একটি ঋতুপ্রধান পর্ণমোচী যার সালোকসংশ্লেষে ‘ঈশ্বর ও শয়তান’ জোগাড় করে বেঁচে থাকার অন্ন!

রাকেশ আলম

রাকেশ আলম

কী লিখি বলো তো? বাড়ি দক্ষিন দিনাজপুর জেলাম টাঙণ পাড়ে। ফিজিক্সের ছাত্র। শিক্ষকতা করি। কবিতা নিয়ে থাকি, মানুষকে ভীষণ ভালোবাসি।

Facebook Comments